1. admin@dailygomutipratidin.com : admin :
শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুমিল্লায় মাদকসহ মাদক কারবারি গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাবের ১১ রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে পুনরায় নির্বাচিত হলে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোস্তাফিজুররহমান মোস্তফা মেট্রোপলিটন পুলিশের মাসিক অপরাধ সভা সদর দপ্তরের কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত কুমিল্লায় স্বামীর নির্যাতনে স্ত্রী হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্দন পীর যাত্রাপুর উত্তর পশ্চিমপাড়া মরহুম দুধু মিয়া জামে মসজিদ মাঠ প্রাঙ্গনে ওয়াজ ও দোয়ার মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে কক্সবাজারের অনলাইনে লুডু খেলাকে কেন্দ্র করে হত্যা মামলার আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৭ কুমিল্লার জেলা বুড়িচং উপজেলার ফকির বাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের  শিক্ষকের বিদায় সংবর্ধনা  শুক্রবার চট্টগ্রামে অধ্যাপক নূরুল ইসলাম হেলালী স্মারক বক্তৃতা বায়েজিদে নিষিদ্ধ অটোরিক্সা থেকে টোকেন বাণিজ্য চাঁদাবাজি করে লক্ষ লক্ষ টাকা কামিয়ে নিচ্ছে সামসু। চট্টগ্রামে বিপুল পরিমাণ মাদক ও গাড়ি সহ মাদককারবারী আটক করেছে র‌্যাব-৭,

কুমিল্লায় আত্নহত্যা নামে নাটক, করেছে খুনের অভিযোগ গ্রামবাসির।

  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৯ আগস্ট, ২০২২
  • ৩৭ বার পঠিত

শাহনাজ ভুঁইয়া
কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি :

কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার উপজেলার ইউসুফপুর ইউনিয়নে মা মেয়ে ছেলে মিলে গিয়াস উদ্দিন নামে এক বিদ্ধঅসুস্থ বাবাকে খুন করে আত্মহত্যার নাটক সাজানোর অভিযোগ উঠেছে এলাকাবাসীর ।

গত ২৬/০৮/২২ইং রোজ বুধবার বিকালে পারিবারিক কলহের জেরদরে অসুস্থ বাবাকে বড় মেয়ে লিমা আক্তার মারধর করে ধাক্কা দেয় এবং পরে কাঠের লাকরি দিয়ে মার ধর করে বুকে লাতি তলপেটে আগাত করেছে বলে নিহতের গিয়াস উদ্দিনের বোনদের অভিযোগ ।

সরজমিনে তদন্তে জানাযায় নিহত গিয়াসউদ্দিনের ছোট ভাই প্রবাসী কাইয়ুমের স্ত্রী মোসাম্মদ ইয়াসমিন বেগম অপরাধ বিচিত্রাকে বলে বুধবার আনুমানিক বিকেল ৩টার দিকে মেয়ের বিয়ে ব্যাপারে যুক্তি পরামর্শ করতে আমার বড় ভাবি নিহত গিয়াসউদ্দিনের স্ত্রী রিনা বেগম ডেকে নিয়ে মেয়ে কিভাবে কি করব পরামর্শ চান।

এর মধ্যে ঘরে থাকা অসুস্থ গিয়াস উদ্দিন কোন কাজ কর্ম করতে পারছেনা তিনি তার জন্য ছেলে,মেয়ে, ও সহধর্মিণী কাছে ছিল না আশ্রয় বলে আভিযোগ করেন এলাবাসি ছোট ভাইয়ের বউ ইয়াসমিন ।

ছোট মেয়ের জামাইয়ের বাড়ি থেকে মেয়েকে উঠিয়ে দেওয়ার কথা ছিল অসুস্থ গিয়াসউদ্দিনের পারিবারিক কলহের জেরধরে নিহতের মা-বাবাকে রিনা বেগম গালাগাল দিলে নিহত গিয়াসউদ্দিন ছোট ভাইয়ের বউ ইয়াসমিনকে বলেন তুমি দেখ বোন আজ আমি সংসারে বড় বোঝা হয়ছি।

তিন মেয়ে এক ছেলে জনক ছিলেন নিহত গিয়াসউদ্দিন ইয়াসমিন বেগম বলেন আমার ঘরে দরজায় এসে দাড়ালে বড় মেয়ে লিমা ও তার মা রিনা বেগম আমার ঘরের ভিতর দিয়ে এসে আবার মারধর শুরু করে, এবং লিমা তার বাবাকে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে ঘর দরজা থেকে বাইরে ফেলে দিলে গিয়াসউদ্দিন অজ্ঞান হয়ে যায় এবং নাকে-মুখে ফেনা ছেড়ে দেয় বেশ কিছুক্ষণ পরে তিনি সাভাবিক হন ।

তিন মেয়ে এক ছেলে জনক ছিলেন নিহত গিয়াসউদ্দিন ইয়াসমিন বেগম বলেন আমার ঘরে দরজায় এসে দাড়ালে বড় মেয়ে লিমা ও তার মা রিনা বেগম আমার ঘরের ভিতর দিয়ে এসে আবার মারধর শুরু করে, এবং লিমা তার বাবাকে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে ঘর দরজা থেকে বাইরে ফেলে দিলে গিয়াসউদ্দিন অজ্ঞান হয়ে যায় এবং নাকে-মুখে ফেনা ছেড়ে দেয় বেশ কিছুক্ষণ পরে তিনি সাভাবিক হন ।

গিয়াস উদ্দিনের ছেলে রাব্বি বাড়িতে আসলে ছেলের কাছে নালিশ দিলে ছেলে রাব্বি বলেন ভাল কাজ করছে। নির্যাতিত গিয়াস উদ্দিন আশায় ছিলেন তাহার একমাত্র ছেলে বাড়িতে এসে বাবাকে একটা শান্তনা দিবে কিন্তু সেও নাকি তাদের মত আচরণ করেছে ভুক্তভোগী গিয়াস উদ্দিন ছেলের কাছে বিচার না পেয়ে তিনি তার নিজের বুকে নিজেই আঘাত করেন।

পরে আমরা সবাই যার যার ঘরে চলে যাই অনেক রাত্র হওয়ার কারণে। পরদিন ফজরের নামাজ পড়ার জন্য আযানের পরপরই ঘুম থেকে উঠে তাদের টিউবলে অজু করার সময় দেখি ভাবি রিনা বেগম উঠান ঝাড়ু দিতেছিলেন কিন্তু ঘরের দরজায় ভাসুরের জুতা দেখতে পাইনি ইয়াসমিন।

ঝাড়ু শেষ করে মা ও মেয়ে লিমা ঘর থেকে বেরিয়ে এসে তাদের ছোট ঘরে ডুকে নিরবতা পালন করেন। আমার সন্দেহের হলে আমি এগিয়ে যাই তাদের পেছন থেকে জিজ্ঞেস করি কি ভাবি কি হয়েছে।

উত্তরে লিমার মা রিনা বেগম বলেন তোমার ভাই মরে গেছে এই কথা শুনে আমি কান্নায় ভেঙ্গে পড়ি কান্না শুনে পাড়া প্রতিবেশী দৌড়ে এসে দেখেন আমার ভাসুর গিয়াস উদ্দিন গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছেন কিন্তু পা গুলো মাটিতে বাকা হয়ে পড়ে ছিল ।

এদিকে নিহতের বড় মেয়ে লিমা ও ভাবি রিনা বেগম বাড়িতে মানুষের সমাগম দেখে তাদের ঘরে ডুকে দরজা বন্ধ করে নিরব থাকেন এলাকা বাসি দেবিদ্বার থানাকে ফোনে অবগত করলে থানা পুলিশ এসে নিহতের লাশ থানায় নিয়ে যান।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ইউসুফ ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়াডের সাবেক মেম্বার ও সাবেক পুলিশ সদস্য, মামুন বলেন রিনা বেগম, লিমা বেগম, রাব্বি সহ মিলে প্রায়ই বৃদ্ধ অসুস্থ গিয়াস উদ্দিনের উপর নির্যাতন করত, রাতে তাহাকে খুন করে আত্নহত্যার নাটকে পরিনত করেছে বলে পুরো এলাবাসির দাবি।

২৭/০৮/২২ইং রোজ শনিবার বিকাল ৫টায় নবীপুর গ্রামে এইনেক্কার জনক ঘটনার প্রতিবাদে বিশাল আলোচনা সভা অনুঠিত হয় উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউসুফ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক মহিলা সংগ্রহীত মেম্বারের স্বামী -আবদুল লতিফ, উক্ত ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান জাকারিয়া ম্যানেজারের বড় ছেলে মোখলেছুর রহমান, মিলন মহুরি, ২নং ওয়াড মেম্বার মোসলেম উদ্দিন,মাওলানা আবুল বাশার,বাচ্চু সরদার সাবেক ২নং ওয়াড মেম্বার ও উৎসব জনতার ডল।

এলাকাবাসি দাবি দেবিদ্বার থানা পুলিশ এসে লাশ নিয়ে যান বেলা -১১টার দিকে কিন্তু লাশ হস্তান্তর করেন ৩ টার দিকে এত অল্প সময়ে ময়নাতদন্ত, আবার লাশের সাথে কোন প্রকার ডকুমেন্টস নেই তাই পুলিশ এখানে কিছু লুকিয়েছে বলে দাবি করেন।

এলাকাবাসি লাশটি দাফন করতে রাজি না হলে, স্থানীয় এলাকার একাদিক ব্যক্তি মুঠোফোন থানায় বিষয়টি অবগত করতে চাইলে এ এস আই নাজমুল আমাদের হুমকি প্রদান করেন বলেন লাশ মাটি দিতে বিলম্ভ করলে গ্রাম বাসির বিরুদ্ধে মামলা দিবে বলে হুমকি প্রদান করেন বলে এলাকা বাসির অভিযোগ।

নিহত গিয়াসউদ্দিনের বোন থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নেয়নি বলে অভিযোগ করেন।

এ বিষয় দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ কমল কৃষ্ণ ধর বলেন আমরা লাশ ময়নাতদন্ত করিয়েছি রিপোর্ট আসলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করিব।

এ বিষয় নিহতের ছেলে ও মেয়ের সাথে মুঠো ফোনে এ বিষয় জানতে চাইলে তারা বলেন গ্রামবাসী আমাদের উপর মিথ্যা অপবাদ আমাদের উপর চাপিয়ে দিয়েছে বলে দাবি করেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর